You are here
Home > অবাক-বিস্ময় > গল্পের মত দ্বীপ থেকে বেঁচে ফেরা!

গল্পের মত দ্বীপ থেকে বেঁচে ফেরা!

গল্পের মত দ্বীপ থেকে বেঁচে ফেরা

এ যেন সেই গ্যালিভার বা ক্যাপ্টেন নিমো’র অ্যাডভেঞ্চারের গল্প। তবে এখানে যেমন নেই কোন ছোট্ট ছোট্ট মানুষ বা নেই কোন অবাস্তব জায়গার উল্ল্যেখ, কিন্তু বাকি অনেকটাই গল্পের মতন। যদিও এখানে খবরের প্রকাশ আবহাওয়ার পূর্বাভাস খেয়াল না করেই বিকেল নাগাদ নৌকা নিয়ে বেরিয়ে পড়েছিলেন তিনজন। ফলাফল – মাঝসমুদ্রে ঝড়ের কবলে পড়ে নৌকাডুবি।

এরপর অন্ধকারে দুই মাইলেরও বেশি পথ সাঁতরে খুঁজে পান একটি দ্বীপ। প্রাথমিক স্বস্তি এলেও তা তৎক্ষণাৎ বদলে যায় আতঙ্কে, যখন তারা বুঝতে পারেন, দ্বীপটি একেবারেই জনমানবশূন্য। নেই খাবার পানি বা কোনও খাবার। সভ্য জগতের সঙ্গে যোগাযোগেরও কোনও পথ নেই। কিন্তু হাল না ছেড়ে তিনজন বুদ্ধি করে প্রচুর পরিমাণে গাছের পাতা জোগাড় করতে শুরু করেন। এরপর অনেকটা ফাঁকা জায়গা দেখে বালির ওপর সেগুলি দিয়ে ইংরেজীতে ‘‌হেল্প’ লিখে রাখেন। আর তার জেরেই প্রাণ নিয়ে বেঁচে ফিরলেন তাঁরা।‌

পানি-‌খাবারহীন ৭২ ঘণ্টা কাটানোর পর ওপর দিয়ে হেলিকপ্টারে করে যাওয়া উপকুল রক্ষির উদ্ধারকারী দলের চোখে পড়ে যান তিনজন। তড়িঘড়ি দ্বীপে হেলিকপ্টার নামিয়ে উদ্ধার করা হয় তাঁদের। উপকূলরক্ষী বাহিনীরা জানান, নিউ গিনির পাপুয়া থেকে ১০০ মাইল দূরে প্রশান্ত মহাসাগরের ফেনাদিক দ্বীপে গিয়ে উঠেছিলেন তাঁরা। ঠিক সময়ে তাঁদের পরিবার উপকূলরক্ষীদের না জানালে, এবং বুদ্ধি খাটিয়ে পাতা দিয়ে ‘হেল্প’‌ না লিখে রাখলে এ যাত্রা তাঁদের ফিরে আসা প্রায় অসম্ভবই ছিল। সত্যি এ যে গল্প, তাহলেও সত্যি। ‌

Top