You are here
Home > জাতীয় > বিশ্বজুড়ে বেড়েছে বাঘ কমেছে বাংলাদেশে

বিশ্বজুড়ে বেড়েছে বাঘ কমেছে বাংলাদেশে

বিশ্বজুড়ে বেড়েছে বাঘ কমেছে বাংলাদেশে

গত এক শতাব্দীর মধ্যে এবারই প্রথম বিশ্বে বাঘের সংখ্যা বাড়ছে। বাঘ আছে এমন দেশে সরকারিভাবে পরিচালিত এক জরিপে এ তথ্য উঠে এসেছে। বন্যপ্রাণী সংরক্ষণবাদীরা গতকাল সোমবার এ তথ্য প্রকাশ করে। তবে সারা বিশ্বে বাঘের সংখ্যা বাড়লেও বাংলাদেশে কমেছে।

২০১০ থেকে ২০১৫— এ পাঁচ বছরে বাংলাদেশে বাঘ কমেছে ৩৩৪টি। ২০১০ সালে বাংলাদেশে ৪৪০টি বাঘ থাকলেও ২০১৫ সালে তা নেমে এসেছে ১০৬টিতে। বিশ্বব্যাংকের সহায়তায় বাংলাদেশ বনবিভাগ ও ওয়াইল্ডলাইফ ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়ার ক্যামেরা ট্র্যাপিং পদ্ধতিতে সর্বশেষ শুমারির তথ্যে এমনটাই বলা হয়েছে।

ওয়ার্ল্ড ওয়াইল্ডলাইফ ফান্ড (ডব্লিউডব্লিউএফ) ও গ্লোবাল টাইগার ফোরাম জানিয়েছে, সর্বশেষ শুমারিতে বিশ্বে মোট তিন হাজার ৮৯০টি বাঘের তথ্য মিলেছে। ২০১০ সালে এ সংখ্যা ছিল তিন হাজার ২০০টি। গত শতাব্দীর শুরুর দিকে বিশ্বব্যাপী বাঘের সংখ্যা ছিল এক লাখের মতো। তবে বিশ্লেষকরা বলছেন, বাঘ গণনায় উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে বাঘের সংখ্যা বেড়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

এমন একটা পরিস্থিতিতে বাঘ আছে এমন দেশের পরিবেশ মন্ত্রীরা আজ থেকে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে এক বৈঠকে মিলিত হচ্ছেন। বাংলাদেশের পরিবেশ ও বন মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এ সম্মেলনে যোগ দিতে এখন নয়াদিল্লি রয়েছেন। অয়োজকদের সূত্রে জানা গেছে, ২০২২ সালের মধ্যে বাঘের সংখ্যা দ্বিগুণ করার লক্ষ্যে এই বৈঠকে একটি কর্মপরিকল্পনা নেয়া হবে।

ডব্লিউডব্লিউএফ এর মহাপরিচালক মার্কে ল্যাম্বার টিনি বলেন, এটি অবশ্যই একটি আশাবাদী খবর। সরকার, স্থানীয় জনগোষ্ঠী এবং সংরক্ষণবিদরা একযোগে কাজ করলে আমরা বাঘ রক্ষা করতে পারি।

এদিকে পৃথিবীতে এখন যে সংখ্যক বাঘ আছে তার অর্ধেকেরই বেশি রয়েছে ভারতে। এর সংখ্যা দুই হাজার ২২৬টি। এছাড়া বাংলাদেশে ১০৬, ভুটানে ১০৩, চীনে ৭, ইন্দোনেশিয়ায় ৩৭১, লাওসে ২, মালয়েশিয়ায় ২৫০, নেপালে ১৯৮, রাশিয়ায় ৪৩৩, থাইল্যান্ডে ১৮৯ এবং ভিয়েতনামে ৫টি বাঘ রয়েছে। মিয়ানমারের বাঘের হিসাব পাওয়া না গেলেও অসমর্থিত সূত্র অনুযায়ী দেশটিতে বাঘের সংখ্যা ৮৫টিরও বেশি।

Top