You are here
Home > জাতীয় > এবার কমেছে বেসরকারী হজযাত্রীর কোটা বেড়েছে সরকারীর

এবার কমেছে বেসরকারী হজযাত্রীর কোটা বেড়েছে সরকারীর

এবার কমেছে বেসরকারী হজযাত্রীর কোটা বেড়েছে সরকারীর

সৌদি সরকারের নিয়ম-কানুন মেনে হজ নীতি ও হজ প্যাকেজ সংশোধন করা হয়েছে। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি সৌদি আরবের সঙ্গে হজচুক্তির সময়ই এ বিষয়গুলো নির্ধারিত হয়েছিল।
সৌদি আরবের ১ লাখ ১ হাজার ৭৫৮ জনের কোটা অনুযায়ী, আগের অনুমোদনের হজযাত্রীদের অতিরিক্ত সংখ্যা কমানো হয়েছে। এজেন্সির ন্যূনতম হজযাত্রী করা হয়েছে ১৫০ জন। হজে কুরবানি দিতে হবে ইসলামিক ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের (আইডিবি) মাধ্যমে।
সচিবালয়ে সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে ‘জাতীয় হজ ও ওমরাহ নীতি ২০১৬’ ও ‘হজ প্যাকেজ ২০১৬’ এর সংশোধন প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়।
বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের এ অনুমোদনের কথা বলেন। চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১০ সেপ্টেম্বর পবিত্র হজ হতে পারে।
গত ১১ জানুয়ারি মন্ত্রিসভা হজ নীতি ও হজ প্যাকেজ অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘ওইদিন সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৫ হাজার আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ৮ হাজার ৮৬৮ জনসহ মোট ১ লাখ ১৩ হাজার ৮৬৮ জন বাংলাদেশ থেকে হজে যেতে পারবেন বলে অনুমোদন দেওয়া হয়। নীতিমালা সংশোধন করে এখন সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১০ হাজার এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৯১ হাজার ৭৫৮ জন হজযাত্রীর সংখ্যা পুনর্নির্ধারণ করা হয়েছে। সে হিসেবে বেসরকারি হজযাত্রীর ১২ হাজার ১১০টি কোটা কমেছে। অন্যদিকে সরকারি হজযাত্রীর কোটা বেড়েছে ৫ হাজারটি।’
তিনি বলেন, ‘সৌদি সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী হজ নীতি ও প্যাকেজে সংশোধন আনা হয়েছে। এতে আমাদের কিছু করার নেই। সব দেশের জন্যই সৌদি এই পলিসি নিয়েছে।’
আগে কোন হজ এজেন্সি সর্বনিম্ন ৫০ জন হজযাত্রী পাঠাতে পারলেও এ বছর থেকে কোন ১৫০ জনের কম হজযাত্রী পাঠাতে পারবেন না বলেও জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।
এ বছর থেকে হজযাত্রীদের বাধ্যতামূলকভাবে আইডিবি’র মাধ্যমে কোরবানি দিতে হবে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘কোরবানি বাবদ হজযাত্রীদের অর্থ অনলাইনের মাধ্যমে আইডিবি ব্যাংকে জমা দিয়ে সেখান থেকে কুপন নিয়ে কোরবানি করতে হবে। ব্যক্তিগতভাবে আর কোরবানি করা যাবে না।’
গত বছর আরাফার ময়দানে অতিরিক্ত গরমে অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়েন, কেউ কেউ মারা যান জানিয়ে শফিউল আলম বলেন, ‘সৌদি সরকার জানিয়েছে, গরমের কষ্ট কমাতে ওয়াটার কুলার ব্যবস্থা করবে তারা।’
তিনি আরও বলেন, ‘আরাফাত ময়দানে স্থাপিত ওয়াটার কুলারের জন্য প্রত্যেক হজযাত্রীর জন্য অতিরিক্ত দেড়শ সৌদি রিয়াল ব্যয় করা হবে। এই অর্থ হাজযাত্রীদের অতিরিক্ত সার্ভিস চার্জ থেকে বহন করা হবে। এজন্য অতিরিক্তি অর্থ নেওয়া হবে না।’
এ বছর থেকে আবাসন, বাড়িভাড়া ও ক্যাটারিং খরচ বাবদ সব অর্থ ই-পেমেন্ট বা অনলাইনে পরিশোধ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে হয়েছে বলেও জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

Top