You are here
Home > জাতীয় > মৃত্যুদণ্ডের রায়ে বাংলাদেশ তৃতীয়: অ্যামনেস্টি

মৃত্যুদণ্ডের রায়ে বাংলাদেশ তৃতীয়: অ্যামনেস্টি

মৃত্যুদণ্ডের রায়ে বাংলাদেশ তৃতীয়: অ্যামনেস্টি

মৃত্যুদণ্ডের সংখ্যা ২০১৫ সালে ব্যাপকভাবে বেড়েছে বলে জানাচ্ছে মানবাধিকার বিষয়ক আন্তর্জাতিক সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। বাংলাদেশে ২০১৫ সালে মৃত্যুদণ্ডের রায় দেয়া হয়েছে ১৯৭টি। যা বিশ্বের মধ্যে তৃতীয় অবস্থানে রেখেছে দেশটিকে। আর মৃত্যদণ্ড কার্যকর হয়েছে চারটি। অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল তাদের বার্ষিক প্রতিবেদনে এমনটাই জানাচ্ছে। বিশ্বজুড়ে ২০১৫ সালে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যে সমস্ত মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেয়া হয়েছে এবং মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে তারই বার্ষিক খতিয়ান তুলে ধরেছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।

সংস্থাটি বলছে গত বছর, সব মিলিয়ে ১৬শর বেশি মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। অ্যামনেস্টির হিসেবে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়েছে ইরান, পাকিস্তান ও সৌদি আরবে। ইরানে কমপক্ষে ৯৭৭টি মৃত্যুদণ্ডের হিসাব রয়েছে। পাকিস্তানে ৩২৬টি, সৌদি আরবে ১৫৮টি।অ্যামনেস্টি বলছে, চীনে প্রতিবছর হাজার হাজার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হচ্ছে। তবে তা গোপন রাখা হচ্ছে।

তালিকার চৌদ্দ-তম স্থানে আছে বাংলাদেশ এবং মৃত্যুদণ্ডের সংখ্যা ২০১৫ সালে ৪টি বলে অ্যামনেস্টির রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়। তবে ২০১৫ সালে মৃত্যুদণ্ডের রায়ের দিক থেকে প্রতিবেশী পাকিস্তান ও ভারতকে পেছনে ফেলে তৃতীয় অবস্থানে বাংলাদেশ। সংস্থাটির হিসেবে মোট রায় হয়েছে ১৯৭টি।

২০১৫ সালে মৃত্যুদণ্ডের রায় দেয়া হয়েছে যেসব দেশের তার মধ্যেও শীর্ষে চীন । দেশটিতে সবোর্চ্চ এই দণ্ডের এক হাজার রায় দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা মিশরে ৫৩৮টি রায় হয়েছে। অ্যামনেস্টি হিসেবে ৬১টি দেশে অন্তত ১৯৯৮টি মৃত্যুদণ্ডের রায় দেয়া হয়েছে গেল বছর জুড়ে।

Top