You are here
Home > কৌতুক > এবারের বিষয়: অফিস

এবারের বিষয়: অফিস

অফিস

♦ বিবাহিতদেরই নিয়োগ
এক অফিসের বস কেবল বিবাহিত লোকদেরই নিয়োগ দেন। একদিন তাঁর বউ তাঁকে জিজ্ঞেস করল, ‘তুমি কেবল বিবাহিতদেরই নিয়োগ দাও কেন?’
স্বামী বললেন, ‘কারণ তারা সহজে বাসায় যেতে চায় না, ধমক সহ্য করে আর মুখ বন্ধ রাখতে জানে।’

♦ ছুটি
অফিসের বস কর্মচারীদের বললেন, ‘আজ আমার মনটা বেশ ভালো। বলো, তোমাদের কী দাবিদাওয়া। আজ সব শুনব।’
এক কর্মচারী বললেন, ‘স্যার, আমরা ছুটি খুবই কম পাই। ছুটি একটু বাড়িয়ে দেওয়া যায় না?’
বস: কী রকম ছুটি চাও, বলো?
কর্মচারী: ছয় মাসের ছুটি, বছরে দুবার!

♦ দেরি
এক অফিসের বস অত্যন্ত বদরাগী। কর্মচারীরা সবাই তার ভয়ে তটস্থ থাকে এবং প্রতিদিন সময়মতো অফিসে হাজির হয়। একদিন এক কর্মচারী এক ঘণ্টা পর অফিসে প্রবেশ করলেন। তাঁর কপালে ব্যান্ডেজ বাঁধা, জামাকাপড়ে ধুলোবালি।
বস: কী ব্যাপার? আজ এত দেরি কেন?
কর্মচারী: স্যার, আমি সময়মতোই অফিসে এসেছিলাম। কিন্তু অফিসের সিঁড়ি দিয়ে ওঠার সময় হঠাৎ পা পিছলে পড়ে গেলাম।
বস: এখন নিশ্চয়ই বলবেন, আপনি এক ঘণ্টা ধরে সিঁড়ি থেকে গড়িয়ে পড়ছিলেন?

♦ দুর্ঘটনা
বস-কর্মকর্তার মধ্যে কথা হচ্ছে—
কর্মকর্তা: স্যার, এবার আমার বেতনটা একটু বাড়িয়ে দিলে ভালো হতো।
বস: কেন?
কর্মকর্তা: গত সপ্তাহে বিয়ে করেছি। তাই আগের বেতনে দুজনের চলাটা বেশ কষ্ট হবে, স্যার।
বস: শুনুন, অফিসের বাইরের কোনো দুর্ঘটনার জন্য অফিস কোনোভাবেই দায়ী নয়। আর তার জন্য জরিমানা দিতেও অফিস রাজি নয়।

♦ সরকারি চাকরি
প্রথম বন্ধু: আমার দাদা দৌড়ে চ্যাম্পিয়ন ছিলেন। তীর ছুড়ে দিলে সেটার আগে লক্ষ্যে পৌঁছে যেতেন।
দ্বিতীয় বন্ধু: আমার দাদা আরও বড় দৌড়বিদ। গুলির পাশাপাশি ছুটতে পারতেন তিনি।
তৃতীয় বন্ধু: আর আমার দাদা সরকারি চাকরি করতেন। অফিস ছুটি হতো পাঁচটায়, তিনি তিনটার সময়ই বাসায় চলে আসতেন রোজ।

♦ নয়টার সময় কিছু হয়েছিল বুঝি
অফিসে দেরি করে এসেছে দেখে কর্মচারীকে ডেকে পাঠালেন বস, ‘আপনার এখানে নয়টার সময় আসা উচিত ছিল।’
কর্মচারী জবাব দেয়, ‘কেন, স্যার? নয়টার সময় কিছু হয়েছিল বুঝি?’

♦ কিছুক্ষণের ছুটি
: স্যার, আজ দুপুরের পর আমাকে কিছুক্ষণের ছুটি দেবেন? আমার স্ত্রীকে নিয়ে একটু শপিং-এ যেতে হবে।
: না, কোনো ছুটি নেই।
: আপনি আমাকে বাঁচালেন, স্যার। আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

♦ রক্ত পানি করে অফিস
: এ কী মশারি ছাড়া শুয়ে আছিস? যে মশা তা তোর রক্ত সব খেয়ে শেষ করে দেবে।
: রক্ত পাবে কোথায়…সারা দিন রক্ত পানি করে অফিস করি, শরীরে কি আর রক্ত আছে।

♦ পরপর দু’টি ভুল
সাপ্তাহিক বেতনের দিন। চেক পেয়ে কর্মচারী চিৎকার দিয়ে উঠল।
: আমাকে কম টাকা দেওয়া হল কেন?
: গত সপ্তাহে ভুলে তোমাকে বেশি টাকা দিয়েছিলাম। তখন তো কিছু বল নি।
: একটা ভুল নাহয় হয়ে গেছে, কিন্তু পরপর দু’টি ভুল তো আর হতে দিতে পারি না।

♦ বাসায়ও ঘুমান নাকি
বস : কী ব্যাপার রাশেদ সাহেব, আপনার আসতে এত লেট হল?
রাশেদ সাহেব : আজ ঘুম থেকে দেরিতে উঠেছি, স্যার; তাই সময়মতো আসতে পারি নি।
বস : অ্যাঁ ! আপনি বাসায়ও ঘুমান নাকি!

Top