You are here
Home > খেলা > মার্কিন সেনাদের পরাস্ত করে কোপার ফাইনালে মেসিরা

মার্কিন সেনাদের পরাস্ত করে কোপার ফাইনালে মেসিরা

মার্কিন সেনাদের পরাস্ত করে কোপার ফাইনালে মেসিরা

ম্যাচের আগে অ্যামেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের কোচ জারগেন ক্লিন্সম্যান হুঙ্কার দিয়েছিলেন যে তিনি নাকি মেসিদের একেবারেই ভয় পান না। কিন্তু, ম্যাচ শুরু হওয়ার প্রথম মুহূর্ত থেকেই গোটা অঙ্কটাই যেন বদলে গেল। ৪-০ গোলে মার্কিন ফুটবলারদের পরাস্ত করে হেসেখেলে কোপা ফাইনালে চলে গেলেন জেরার্ডো মার্টিনোর দলবল। এই নিয়ে পরপর দু’বছর কোপা ফাইনালে উঠল আর্জেন্টিনা।

দলের হয়ে জোড়া গোল করেছেন হিগুয়েন, একটি করে গোল করেন লাভেজ্জি ও মেসি। ২৭ জুনের ফাইনালে মেসিদের প্রতিপক্ষ দ্বিতীয় সেমিফাইনালজয়ী চিলি অথবা কলম্বিয়া।

ব্যাপক ফর্মে থাকা আর্জেন্টিনা শুরুতেই যুক্তরাষ্ট্রকে চেপে ধরে। কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই টেক্সাসের রেলিয়্যান্ট স্টেডিয়ামসহ পুরো যুক্তরাষ্ট্র স্তব্ধ করে দেন এসকুয়েল লাভেজ্জি। গোলদাতা লাভেজ্জি হলেও মূল কারিগর সেই মেসি। ডি-বক্সের সামান্য বাইরে থেকে বল পেয়ে বাঁ পায়ের আলতো টোকায় ডিফেন্ডারদের মাথার উপর দিয় বল দেন ফাঁকায় থাকা লাভেজ্জিকে। হেড দিয়ে সেই বল জালে জড়াতে ভুল করেননি সাবেক পিএসজি ফরোয়ার্ড। মার্কিন গোলকিপারের বল দেখা ছাড়া আর কিছুই করার ছিল না।

দ্বিতীয় গোল পেতে প্রায় আধাঘণ্টা অপেক্ষা করতে হয় আর্জেন্টিনার। ম্যাচের ২৯ মিনিটে দলকে দ্বিতীয়বারের মতো লিড এনে দেন অধিনায়ক মেসি। ডি-বক্সের বেশ বাইরে থেকে চুলচেড়া ফ্রি-কিকে গোল করেন তিনি। আগের ম্যাচেই বাতিস্তুতাকে স্পর্শ করেছিলেন। আর এই ম্যাচে গোল করে আর্জেন্টিনার জার্সিতে সর্বোচ্চ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করলেন বার্সেলোনা রাজপুত্র।

লাভেজ্জি-মেসির দুই গোলের লিড নিয়ে বিরতিতে যায় আর্জেন্টিনা। দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নেমে গােল পেতে সময় লাগেনি তাদের। ৫০ মিনিটে দলের তৃতীয় গোল করেন গঞ্জালো হিগুয়েন। আর ম্যাচের অন্তিম মুহুর্তে (৮৬ মিনিটে) মেসির বাড়ানো বল থেকে মার্কিনিদের কফিনে শেষ পেরেক ঠোকেন হিগুয়েন। পুরো আর্জেন্টিনার রক্ষণে দু-চারবার হানা দিলেও কাঙ্ক্ষিত গােলের দেখা পায়নি স্বাগতিকরা।

কোপার গত চারটি আসরেই সেমিফাইনালে উঠেছে আর্জেন্টিনা। আর টানা দ্বিতীয়বারের মতো ফাইনালে উঠলো তারা। আর ১৯৯৫ সালের ব্রাজিল আসরের পর দ্বিতীয়বারের মতো সেফিতে উঠা যুক্তরাষ্ট্রের হতাশ হতে হলো এবার ঘরের মাঠে।

এই জয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষ সম্মুখ লড়াইতেও এগিয়ে গেল মেসিরা। এর আগের দুইবার মুখোমুখি হয়েছিল দুদল। ১৯৯৫ সালে আর্জেন্টিনাকে ৩-০ গোলে হারিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র। তবে ২০০৭ সালে পরের সাক্ষাতে মার্কিনিদের ৪-১ হারিয়ে শোধটা ভালই নিয়েছিল আর্জেন্টাইনরা।

Top