You are here
Home > বিনোদন > লতা-শচীনকে ব্যঙ্গ করে ভিডিও কৌতুকশিল্পী তন্ময়ের

লতা-শচীনকে ব্যঙ্গ করে ভিডিও কৌতুকশিল্পী তন্ময়ের

লতা-শচীনকে ব্যঙ্গ করে ভিডিও কৌতুকশিল্পী তন্ময়ের

লতা মঙ্গেশকর এবং সচিন তেন্ডুলকরকে নিয়ে ব্যঙ্গ-ভিডিও পোস্ট করে বিপাকে কৌতুকশিল্পী তন্ময় ভট্ট। মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনার (এমএনএস) তরফে মারধরের হুমকির পরে এ বার সক্রিয় প্রশাসনও। ঘটনার তদন্ত শুরু করে আজই ফেসবুক এবং ইউটিউব কর্তৃপক্ষকে ভিডিওটি ব্লক করার কথা বলেছে মুম্বাই পুলিশ।

বছর চারেক আগে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জড়িয়ে একটি ব্যঙ্গ-চিত্র ই-মেলে ফরোয়ার্ড করায় গ্রেফতার হতে হয়েছিল যাদবপুরের অধ্যাপক অম্বিকেশ মহাপাত্রকে। এ বার কি দুই ভারতরত্নকে নিয়ে রঙ্গ করার ‘অপরাধে’ তন্ময়কেও গ্রেফতার হতে হবে? লেখক চেতন ভগত টুইটারে লিখেছেন, ‘‘শুধু কৌতুক করার জন্য কাউকে গ্রেফতার করা যায় না। সেই কৌতুক খুব নিম্নমানের হলেও না।’’ বলিউডের একাংশ যদিও ভিডিওটি নিয়ে ফুঁসছে।

কী সেই ভিডিও? মুম্বইয়ের শিবাজি পার্ক থানা জানিয়েছে, গত ২৬ মে ফেসবুক এবং অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়ায় ‘সচিন ভার্সেস লতা সিভিল ওয়ার’ নামের একটি ভিডিও পোস্ট করে এআইবি। যাতে ‘লতা’ এবং ‘সচিনকে’ ঝগড়া করতে দেখা গিয়েছে। ঝগড়ার বিষয়— কে বড় ক্রিকেটার, সচিন না বিরাট কোহালি! দু’টি চরিত্রেই অভিনয় করেছেন তন্ময় ভট্ট। বিকৃত ভাবে দুই ভারতরত্নের গলা নকল করার পাশাপাশি তন্ময়ের লতার বয়স নিয়েও কটাক্ষ করেছেন।

ভিডিওটি ভাইরাল হওয়া মাত্রই ক্ষোভ ছড়ায় মহারাষ্ট্রে। বিরোধিতায় নামে শিবসেনা, বিজেপি। আজ দফায় দফায় বিক্ষোভ দেখান জাতীয়তাবাদী কংগ্রেসের মহিলা শাখার সদস্যেরাও। তন্ময়ের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন এমএনএস প্রধান রাজ ঠাকরে। তবে পুলিশের পক্ষ থেকে এখনও এফআইআর দায়ের করা হয়নি। ভিডিওটির ট্রান্সক্রিপ্ট সংগ্রহ করেছে পুলিশ। তবে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়ার আগে আইনি মতামত নেওয়া হবে বলে জানান মুম্বইয়ের ডিসিপি (অপারেশনস) সংগ্রামসিংহ নিশানদার।

সোশ্যাল মিডিয়া কিংবা বলিউডের একাংশ তবু আজ দিনভর উত্তাল থেকেছে ভিডিওটির সমালোচনায়। ভিডিওটির তীব্র নিন্দা করেন সেন্সর বোর্ডের সদস্য অশোক পণ্ডিত থেকে শুরু করে অনুপম খের, রীতেশ দেশমুখ, সেলিনা জেটলি, সোনু নিগমরা।

ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সচিনের স্ত্রী অঞ্জলি তেন্ডুলকরও। টুইটারে তিনি লেখেন, ‘‘কাউকে অসম্মান করাটা কোনও কাজের কথা নয়। এতে মজারও কিছু নেই। কৌতুক আর অপমানের মধ্যে ফারাকটা বোঝা উচিত।’’

এ নিয়ে কৌতুকশিল্পীর কী বক্তব্য? তন্ময় এখনও নিজের অবস্থানেই অন়ড় রয়েছেন। তবে তিনি যে লতা-সচিন দু’জনকেই শ্রদ্ধা করেন, ভিডিওটি পোস্ট করার আগেই তা জানিয়েছেন তন্ময়।

Top