You are here
Home > প্রযুক্তি > ৪জি এলটিই সাপোর্টেড স্যামসাং জে সিরিজের নতুন তিন স্মার্টফোন

৪জি এলটিই সাপোর্টেড স্যামসাং জে সিরিজের নতুন তিন স্মার্টফোন

স্যামসাং জে সিরিজ

স্যামসাং মোবাইল বাংলাদেশ ‘জে সিরিজ ২০১৬ এডিশনের’ নতুন তিনটি স্মার্টফোন এনেছে বাজারে। সম্প্রতি বাংলাদেশের বাজারে ছাড়া জে সিরিজের মডেলগুলো হচ্ছে, “জে৩, জে৫ এবং জে৭”।

৪জি এলটিই সুবিধা ও অত্যাধুনিক ফিচার সমৃদ্ধ এ হ্যান্ডসেটগুলোতে বিশেষ ফিচার হিসেবে দেয়া আছে “আল্ট্রা-ডাটা সেভিং (ইউডিএস) মোড এবং ইউনিক এস বাইক মোড”।

তিনটি হ্যান্ডসেটের দাম ক্রয়-ক্ষমতার মধ্যে নির্ধারণ হওয়ায় মেটাল ফ্রেমের স্টাইলিশ আউটলুক এবং নিখুঁত কার্যকারীতার সমন্বয়ে তৈরি এ স্মার্টফোনগুলো কিনতে গ্রাহকদের দাম নিয়েও ভাবতে হবেনা।

গ্রাহকরা তাদের পছন্দ ও সামর্থ্য অনুযায়ী জে৩ ১৪ হাজার ৯৯০ টাকায়, জে৫ ২১,৯০০ টাকায় এবং জে৭ ২৪,৯০০ টাকায় কিনতে পারবেন। বর্তমানে সাদা, কালো ও সোনালী রঙে পাওয়া যাচ্ছে হ্যান্ডসেটগুলো।

বৃহস্পতিবার (২৬ মে) রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলোদেশের বাজারে আসা নতুন এই হ্যান্ডসেটগুলো নিয়ে কর্মশালার আয়োজন করে স্যামসাং মোবাইল বাংলাদেশ।

এতে স্যামসাং মোবাইল বাংলাদেশের হেড অব মোবাইল হাসান মেহেদী বলেন, গ্রাহকদের নতুন অভিজ্ঞতা এবং উন্নত প্রযুক্তির সমন্বয়ে লাইফস্টাইল সলিউশন দিতে স্যামসাং প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। বাংলাদেশ মোবাইল খাতে অগ্রগামী দিকটি লক্ষ্যে নিয়ে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ডিভাইসগুলো এখানে আনতে পেরে আমরা আনন্দিত।

আমন্ত্রিত অতিথিদের সামনে স্যামসাং বাংলাদেশের ট্রেনিং ম্যানেজার মোহাম্মদ শাহরিয়ার পাওয়ার পয়েন্টে জে৩, জে৫, জে৭ এর বিস্তারিত উপস্থাপন করেন। হ্যান্ডসেটগুলোর পর্দা যথাক্রমে ৫ ইঞ্চি, ৫.২ ইঞ্চি এবং ৫.৫ ইঞ্চি।

এগুলোর ডিসপ্লে এইচডি সুপার অ্যামোলেড হওয়ায় ব্যবহারকারীরা দিনের আলোতেও উজ্জল ছবি পাবেন। এর হাই কন্ট্র্যাস্ট ছবি এবং সুপারলেটিভ ভিউইং এঙ্গেল সুবিধা যা সমমূল্যের অন্য হ্যান্ডসেটগুলো থেকে আলাদা করে তোলে। এছাড়া উইন্ডো এলসিডি ডিসপ্লের তুলনায় ৪০% বেশি রঙিন এর উইন্ডো।

হ্যান্ডসেটগুলোতে আরো আছে এফ ১.৯ অ্যাপারচার যুক্ত ১৩ মেগাপিক্সেলের রিয়ার ক্যামেরা, যা দিয়ে যে কোন পরিবেশের আলোয় চমৎকার সব ছবি তোলা যায়। সামনে ও পিছনের ক্যামেরায় অন্যান্য বৈশিষ্ট্যগুলো এলইডি ফ্ল্যাশ, ম্যানুয়াল অ্যাপারচার সেটিংস এবং অ্যাডভান্সড ফটো সেটিংস। ফোনগুলোতে ২ জিবি ৠাম, ৬৪-বিটের অক্টাকোর (১.৬ গিগাহার্টজ) এবং কোয়াডকোর প্রসেসর (১.২ গিগাহার্টজ) থাকায় দ্রুত কার্যসম্পাদনে সাহায্য করবে।

অন্যান্য তথ্য মতে, হ্যান্ডসেটগুলোর আল্ট্রা-ডাটা সেভিং মোড ব্যবহারকারীকে একইসঙ্গে মোবাইল ডাটা ব্যবহার এবং ডাটা অপটিমাইজেশনের মাধ্যমে ডাটা সংরক্ষণের আলাদা তথ্য দেবে। বিশেষ এই ইউডিএস মোড ১১% পর্যন্ত ৠাম এবং ভিডিও চলাকালীন সময়ে ৫০% পর্যন্ত ডাটা সংরক্ষণ করতে পারে। নিউজ সাইট/ অ্যাপ ভিজিট করতেও এটি ৪০% এবং ব্রাউজিং‘এ ৩০% পর্যন্ত ডাটা সংরক্ষণ নিশ্চিত করে।

মেন্যু থেকে ইউডিএস আইকন চেপে গ্রাহকরা সরাসরি এই মোডটি চালু ও বন্ধ করতে পারবেন। আর কত শতাংশ ডাটা খরচ এবং কত শতাংশ অবশিষ্ট রয়েছে তা ব্যবহারকারীকে জানাবে এর স্মার্ট ম্যানেজার।

ডাটা কম্প্রেসিং সুবিধার এ হ্যান্ডসেটে ভিডিও স্ট্রিমিং উপভোগ্য হবে নিরবিচ্ছিন্ন সেইসাথে ইন্টারনেট ব্যবহারের খরচও হবে কম। এছাড়াও ইউডিএস মোডের ‘অ্যাপ এক্সেপশনস’ অপশন থেকে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ৬টি অ্যাপ চালু করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। এই ডাটা কম্প্রেশন সহজেই বন্ধ ও চালু করা যায়।

নিরাপদ যোগাযোগে উৎসাহিত করতে এস বাইক মোডের মোশন লক ফিচার নিশ্চিত করে যে, ব্যবহারকারী যদি কোনো জরুরি ইনকামিং কল রিসিভ করতে চান তবে তাকে বাইক সম্পূর্ণভাবে থামানোর পর কলটি রিসিভ করতে হবে। এস বাইক মোড চালু অবস্থায় ব্যবহারকারী কলারের নোটিফিকেশনস দেখতে পাবেন। অন্যদিকে স্মার্ট রিপ্লাই ফিচারের মাধ্যমে নির্বাচিত নম্বরগুলো অটোমেটিক এসএমএস পাবেন। এমনকি নির্বাচিত কলাররা ফোন করলে কতক্ষণ পর রিসিভার ফোন রিসিভ করতে পারবেন তার সম্ভাব্য সময় কলারদের জানিয়ে দেওয়া হবে।

গ্যালাক্সি জে ২০১৬ এডিশনের হ্যান্ডসেটগুলো ব্যবহারকারীদের জীবনযাত্রাকে আরও সুবিধাজনক, আরামদায়ক এবং নিরাপদময় করে তুলবে বলে বিশ্বাস কর্তৃপক্ষের।

অ্যাডভান্সড কার্যক্ষমতার এই ফোনের ব্যবহারকারী ল্যাগ ফ্রি অপারেশন, বাফার ফ্রি ইন্টারনেট ব্রাউজিং এবং বাধাহীন দীর্ঘক্ষণ গেমস খেলার অভিজ্ঞতা নিতে পারবেন।

আগ্রহীরা ৩ মাসের ইএমআই সুবিধায় হ্যান্ডসেটগুলো কেনার সুযোগ পাচ্ছেন।

বিস্তারিত জানতে ০৮০০০-৩০০৩০০(কর মুক্ত) অথবা নিকটস্থ অনুমোদিত স্যামসাং স্টোরগুলোতে ভিজিট করতে পারেন।

Top