You are here
Home > অবাক-বিস্ময় > ৫ মিনিটের স্মৃতিই সম্বল তাইওয়ানের চেন হোংঝি’র!

৫ মিনিটের স্মৃতিই সম্বল তাইওয়ানের চেন হোংঝি’র!

৫ মিনিটের স্মৃতিই সম্বল তাইওয়ানের চেন হোংঝি’র

শর্ট টাইম মেমরি লস। এই শব্দবন্ধের সঙ্গে এখন অনেকেই বেশ পরিচিত বলিউডের ফিল্ম গজনীর সৌজন্যে। একজন মানুষ কীভাবে কয়েক মিনিট আগের সমস্ত স্মৃতি ভুলে যান, তারই অনবদ্য চিত্রায়ণ করেছিলেন মিস্টার পারফেকশনিস্ট আমির খান। এবার রিল লাইফ সেই গজনীর দেখা মিলল রিয়েল লাইফে।

তাইওয়ানের চেন হোংঝি ৫ মিনিট আগের ঘটনা স্মৃতিতে ধরে রাখতে পারেন না। ফিল্মে আমির খান যেমন নিজের গায়ে নম্বর লিখে রেখে, পরিচিত ব্যক্তির ছবি তুলে তাতে নাম লিখে রেখে স্মৃতিকে ধরে রাখার চেষ্টা চালাতেন, চেনও তেমনি একটি ডায়েরিতে লিখে রাখেন তাঁর জীবনের গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা, হিসেব-নিকেশ।

চেন ছোটবেলায় স্বাভাবিকই ছিলেন। ১৭ বছর বয়সে একটি ভয়াবহ দুর্ঘটনায় তাঁর মাথায় প্রবল আঘাত লাগে। শারীরিক ক্ষত সারলেও মস্তিষ্কের আঘাতের কারণে স্মৃতিশক্তি হারিয়ে ফেলেন চেন। তিনি ৫-১০ মিনিট আগের ঘটনাও এখন মনে রাখতে পারেন না। এভাবেই চলছে গত ৮ বছর ধরে।

রোজ ঘুম থেকে ওঠার পর চেনের মা, ৬০ বছরের মিয়াও চিয়ং তাঁকে বোঝান, তাঁর বয়স এখন আর ১৭ নয়। চেনের বর্তমান পরিস্থিতি, তাঁর কাজকর্ম রোজ একবার তাঁকে মনে করিয়ে দেন তাঁর মা।

স্মৃতিতে চোখ বুলিয়ে নিতে একটি ডায়েরি মেনটেন করেন চেন। তিনি যা দেখছেন, যা করছেন, সব লিখে রাখেন সেই ডায়েরিতে। সংগৃহীত প্লাস্টিকের বোতল বিক্রি করে রোজ কত আয় হচ্ছে, তার পাই-পয়সার হিসেবও লিখে রাখেন। অনেক সময় নিজের লেখা পড়তে তাঁকে নিজেরই ফোনেটিক স্ক্রিপ্টের সাহায্য নিতে হয়।

রোজ সকালে উঠে যখন চেন আয়নার সামনে দাঁড়ান, তখন তাঁর নিজের চেহারাই তাঁর কাছে একেবারে অচেনা। গত আট বছরের ঘটনা তাঁর মস্তিষ্ক থেকে ডিলিটেড। এই অবস্থা থেকে রোজ তাঁকে জীবনে বেঁচে থাকার রসদ জুগিয়ে যাচ্ছেন তাঁর বৃদ্ধা মা। তবে, তাঁর মৃত্যুর পর চেনকে কে সামলাবে, সেই ভেবেই দিশেহারা অসহায় মা।

Top