You are here
Home > জাতীয় > ঠুনকো অভিযোগে ৪০,০০০ বাংলাদেশি গৃহকর্মী ফেরত পাঠাচ্ছে সৌদি

ঠুনকো অভিযোগে ৪০,০০০ বাংলাদেশি গৃহকর্মী ফেরত পাঠাচ্ছে সৌদি

বাংলাদেশি গৃহকর্মী সৌদি আরব

৪০,০০০ বাংলাদেশী গৃহকর্মীকে ফেরত পাঠাচ্ছে সৌদি আরব। প্রবাসী বাংলাদেশীদের একটি বড় অংশ কর্মরত সৌদি আরবে। সেখানে কর্মরত মোট কর্মীর ৫০ শতাংশকেই নানান কারণ দেখিয়ে ফেরত পাঠিয়ে দিয়েছে সৌদি আরব।

‘কাজে অনীহা’, ‘পেশাগত অদক্ষতা’, ‘দ্রুত মানিয়ে নিতে না পারার’ মতো ঠুনকো অভিযোগে সৌদি আরবের জেদ্দা থেকে তাদের বাংলাদেশে ফেরত আসতে হচ্ছে।

একাধিক নিয়োগকারী সংস্থার বরাত দিয়ে সৌদি আরবের গণমাধ্যম আরব নিউজ বলছে, সৌদিতে শ্রমিক নিয়োগ প্রক্রিয়ার শুরুর দিকে আসা গৃহকর্মীদের এবার বাংলাদেশে ফিরতে হচ্ছে।

আরব নিউজ তাদের খবরে জানিয়েছে, ‘কাস্টমারদের তিন মাস এসব গৃহকর্মীকে সুযোগ দিতে বলা হয়। যদি সে এ সময়ের মধ্যে নিজেকে সক্ষম হিসেবে প্রমাণে ব্যর্থ হয়, তবে গৃহকর্মীর স্পন্সর সে খবরটি রিক্রুটমেন্ট অফিসে জানায়।

পরে সেই গৃহকর্মীকে তার অক্ষমতার কথা জানিয়ে দূতাবাস মারফত চিঠি পাঠানো হয়। পরে তাকে দূতাবাস মারফত নিজ দেশে পাঠিয়ে দেয় রিক্রুটমেন্ট এজেন্সি।

একটি রিক্রুটমেন্ট অফিসের কর্ণধার হুসেইন আল-হার্থি আরব নিউজকে বলেন, ‘তারা কাজ করতে অস্বীকৃতি জানাচ্ছে। এছাড়াও বাংলাদেশে তাদের যথাযথ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়নি। ভাষাগত সমস্যা তো আছেই, সেই সঙ্গে তারা রাজধানীর জেদ্দার সংস্কৃতির সঙ্গেও নিজেকে খাপ খাইয়ে নিতে পারছে না।’

আরেকটি রিক্রুটমেন্ট অফিসের কর্ণধার আলী আল-ওমারি জানান, নিয়োগ প্রক্রিয়ার শুরু থেকে এ অবধি দেড় লাখেরও বেশি ভিসা পেয়েছে বাংলাদেশিরা।

সৌদি আরবে বাংলাদেশ দূতাবাসের বরাত দিয়ে আরব নিউজ বলছে, বাংলাদেশ সরকার দ্রুত একটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র খুলবে। দেশ থেকে আসা কর্মীদের জন্য একটি পুনর্বাসন কেন্দ্রও খোলা হবে।

খবরে বলা হয়, ‘বাংলাদেশ বিদেশ থেকে অর্থোপার্জন করতে চায়, এটাই তাদের মূল চাওয়া।’

Top