You are here
Home > ঢাকার খবর > ঈদের আগেই ৯ম ওয়েজ বোর্ড চান সংবাদিকরা

ঈদের আগেই ৯ম ওয়েজ বোর্ড চান সংবাদিকরা

ঈদের আগেই ৯ম ওয়েজ বোর্ড চান সংবাদিকরা

ঈদের আগেই নবম ওয়েজ বোর্ড ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন সাংবাদিক শ্রমিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদ। সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাব চত্বরে এক মহাসমাবেশে সাংবাদিক নেতারা এ দাবি জানান। সেই সাথে জুনের মধ্যে শ্রমিকদের বেতন ও বোনাস দেয়ারও দাবি করেছেন তারা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাংবাদিক মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল বলেন, “রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রী, এমপিসহ সকল সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন বেড়েছে। সুতরাং নবম ওয়েজ বোর্ডের দাবি কোনো অযৌক্তিক দাবি নয়। ওয়েজ বোর্ড শুধু বেতন বাড়ানোর দাবি নয়। এর মধ্য দিয়ে অবকাঠামো তৈরি হয়।”

এছাড়া তিনি সাংবাদিকদের হয়রানি ও কথায় কথায় চাকরিচ্যুত না করার জন্য মালিকদেরকে আহ্বান জানান।

এরই মধ্যে সাংবাদিকদের নবম ওয়জ বোর্ড গঠনের দাবির সঙ্গে কয়েকজন মন্ত্রী একাত্মতা জানিয়েছেন। এ বিষয়ে বিএফইউজের মহাসচিব ওমর ফারুক অভিযোগ করেন, “গত তিন বছর তথ্য মন্ত্রণালয় সাংবাদিকদের জন্য কোনো কাজ করেছে বলে মনে হয় না।”

ওমর ফারুক বলেন, “পঞ্চম ওয়েজ বোর্ডে সাংবাদিকদের বেতন সরকারি কর্মকর্তাদের প্রায় সমান ছিল। কিন্তু তারপরই বেতন বৈষম্য তৈরি হয়।”

সমাবেশে ঐক্য পরিষদ নেতারা বলেন, সরকারি কর্মকর্তা, বিচার বিভাগসহ সরকারের বিভিন্ন স্তরে বেতন–ভাতা বৃদ্ধির ফলে গণমাধ্যমকর্মীরা বেতনবৈষম্যের শিকার হয়েছেন। এক মাসের মধ্যে দাবি পূরণ না হলে নেতারা বৃহত্তর আন্দোলনে যেতে বাধ্য হবেন বলে হুঁশিয়ারি দেন।

নারী সাংবাদিক কেন্দ্রের সভাপতি নাজমুন আরা হক বলেন, “মেধাবীরাই সাংবাদিকতায় আসেন। অথচ মালিকরা পত্রিকা বের করে সাংবাদিকদের যখন তথন চাকরিচ্যুত করেন।”

সভায় নেতারা দাবি করেন, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা বৃদ্ধি করা হলেও গণমাধ্যমসহ বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরতরা নানাভাবে বেতন-ভাতার দিক থেকে বঞ্চিত ও চাকুরিচ্যুত হচ্ছেন।

প্রসঙ্গত, গতবছর সর্বোচ্চ ৭৮ হাজার এবং সর্বনিম্ন ৮ হাজার ২৫০ টাকা মূল ধরে সরকারি চাকুরেদের জন্য অষ্টম বেতন কাঠামো অনুমোদন করেছে সরকার। এর সঙ্গে সঙ্গতি রেখে সশস্ত্র বাহিনীর জন্যও নতুন বেতন কাঠামো অনুমোদন দেয়া হয়। এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদেরও নতুন কাঠামোতে বেতন দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়।

এরপর থেকেই সাংবাদিকদের বিভিন্ন সংগঠন সরকারি বেতন কাঠামোর সঙ্গে সঙ্গতি রেখে নবম ওয়েজ বোর্ড গঠনের দাবি জানিয়ে আসছে। সর্বশেষ ২০১২ সালে সংবাদপত্রের কর্মীদের জন্য মূল বেতনের ৫০ শতাংশ হারে অন্তর্বর্তীকালীন মহার্ঘ্য ভাতা ঘোষণা করেছিল সংবাদপত্রের অষ্টম মজুরি বোর্ড। পরের বছর অষ্টম ওয়েজ বোর্ড রোয়েদাদ ঘোষণা করা হয়।

মহাসমাবেশে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ ফেডারেল ইউনিয়ন অব নিউজপেপার প্রেস ওয়ার্কার্সের সভাপতি আলমগীর হোসেনের সভাপতিত্বে সকালে এই মহাসমাবেশ শুরু হয়ে দুপুর আড়াইটায় শেষ হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশে ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল। এছাড়া বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) মহাসচিব ওমর ফারুক, সাবেক মহাসচিব আব্দুল জলিল ভূইয়া, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সভাপতি শাবান মাহমুদ, সহসভাপতি আতিকুর রহমান, জাতীয় প্রেস ক্লাবের কোষাধ্যক্ষ কার্তিক চ্যাটার্জি, ডিইউজের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ, ডিইউজের নির্বাহী সদস্য মুর্তজা হায়দার লিটন সমাবেশে বক্তব্য দেন।

Top