You are here
Home > আন্তর্জাতিক > কিমের সঙ্গে আলোচনায় আগ্রহী ট্রাম্প

কিমের সঙ্গে আলোচনায় আগ্রহী ট্রাম্প

ডোনাল্ড ট্রাম্প-কিম জং-উন

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দলের সম্ভাব্য প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে তিনি দেশটির নেতা কিম জং-উনের সঙ্গে কথা বলতে আগ্রহী।

বিবিসি অনলাইন বুধবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, মঙ্গলবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে উত্তর কোরিয়ার নেতাকে নিয়ে এমন মনোভাব দেখান তিনি।

ব্যবসায়ী রাজনীতিক ট্রাম্প বলেন, ‘আমি তার সঙ্গে কথা বলতে চাই। তার সঙ্গে কথা বলার ব্যাপারে আমার কোনো আপত্তি নেই।’

তবে এ ধরনের কোনো বৈঠক হলে সেটা উত্তর কোরিয়ার ব্যাপারে মার্কিন নীতির নাটকীয় পরিবর্তন বলে বিবেচিত হবে।

এটা কিভাবে সম্ভব হতে পারে—জানতে চাইলে ট্রাম্প বলেন, ‘উত্তর কোরিয়ার ওপর চীনের ব্যাপক প্রভাব বজায় থাকায় তারা এটা যেকোনোভাবেই করতে পারে।’

ট্রাম্পের এই মন্তব্যকে ‘বিদেশি লৌহমানবের’ প্রতি তার ‘অস্বাভাবিক আকর্ষণ’ হিসেবে অভিহিত করেছেন ডেমোক্রেট দলের মনোনয়নের দৌড়ে এগিয়ে থাকা হিলারি ক্লিনটন।

উত্তর কোরিয়ার একমাত্র মিত্র দেশ হিসেবে চীনের কথা উল্লেখ করে ট্রাম্প আরও বলেন, ‘আমি চীনকে অনেক চাপের মুখে রাখতে চাই, কারণ অর্থনৈতিকভাবে চীনের ওপর আমাদের অনেক প্রভাব রয়েছে। কিন্তু জনগণের মাঝে এ বোধটা নেই।’

তিনি বলেন, ‘তারা আমাদের দেশ থেকে কোটি কোটি ডলার নিয়ে যাচ্ছে। তাই চীনের ওপর আমাদের রয়েছে ব্যাপক প্রভাব।’

উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক অস্ত্র রয়েছে এ কথা স্মরণ করিয়ে দিলে ট্রাম্প আরও বলেন, ‘আমি এটা জানি। যাইহোক, এটা চীন দেখবে।’

ওই সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গেও আলোচনা করার আগ্রহ দেখিয়েছেন। তাকে নিয়ে করা মন্তব্যের জন্য পুতিনকে ধন্যবাদ দিলেও ইউক্রেন নিয়ে তার নীতির সমর্থন করেন না বলেও স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন ট্রাম্প।

এদিকে, আগামী নভেম্বরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগেই ট্রাম্প যুক্তরাজ্যে যেতে পারেন বলে জানিয়েছে বিবিসি। কূটনীতিকদের ধারণা, জুলাই মাসে রিপাবলিকান দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী মনোনয়ন চূড়ান্ত হওয়ার পর তিনি যুক্তরাজ্যে যেতে পারেন।

যুক্তরাষ্ট্রে মুসলমানদের প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা উচিত-ট্রাম্পের এমন বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন ও লন্ডনের নবনির্বাচিত মেয়র সাদিক খান। এমন পরিস্থিতিতে চলতি সপ্তাহের শুরুতে ট্রাম্প বলেন, ‘মনে হচ্ছে যে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক খুব একটা ভালো যাচ্ছে না।’

অন্যদিকে, বিতর্কিত মন্তব্য করে নির্বাচনী প্রচারণার পুরো সময় জুড়েই আলোচনায় ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এ প্রসঙ্গে ‘ফক্স নিউজের’ সঙ্গে আরেকটি সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প বলেছেন, গত ৯ মাসের নির্বাচনী প্রচারণা নিয়ে অনুশোচনা আছে। কিন্তু এরকম প্রচারণা না করলে তিনি সফল হতে পারতেন না।

Top