You are here
Home > প্রবাস > জয়কে হত্যা ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে মালয়েশিয়া যুবলীগের প্রতিবাদ সভা

জয়কে হত্যা ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে মালয়েশিয়া যুবলীগের প্রতিবাদ সভা

জয়কে হত্যা ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে মালয়েশিয়া যুবলীগের প্রতিবাদ সভা

মোস্তফা ইমরান রাজু, মালয়েশিয়া: বঙ্গবন্ধুর দোহিত্র, প্রধানমন্ত্রী পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয় বাংলাদেশের অলংকার, অহংকার। তার বিরুদ্ধে কোন ষড়যন্ত্র জাতি মেনে নেবে না।রবিবার বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ মালয়েশিয়া শাখার উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্ঠা সজীব ওয়াজেদ জয় এর বিরুদ্ধে কুৎসা রটানো ও গুপ্ত হত্যার ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে আয়োজিত এক প্রতিবাদ সভায় এ মন্তব্য করেন মালয়েশিয়া সফররত বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ বদিউল আলম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বদিউল আলম বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের রুপকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। তথ্য, প্রযুক্তিতে ঈর্ষন্বীয় সাফল্য অর্জন করে, সারা বিশ্বের কাছে রোল মডেল বাংলাদেশ। আর এসবকিছু সম্ভব হয়েছে, তারুন্যের অহংকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য, সুশিক্ষিত পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয় এর কারনে। জয় শুধু বাংলাদেশের নয় এখন সারা বিশ্বের সম্পদ। তাই সজীব ওয়াজেদ জয় এর বিরুদ্ধে কোন ষড়যন্ত্র সহ্য করা হবে না বলে মন্তব্য করেন, যুবলীগের কেন্দ্রীয় এ নেতা।

জহিরুল ইসলাম জহির ও মাসুদুল আলম রনির সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ মালয়েশিয়া শাখার আহ্বায়ক তাজকীর আহমেদ। সমাপনী বক্তব্যে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর পর তার পরিবারের নানা সদস্যদের নামে যেভাবে কুৎসা রটানো হয়েছিলো ঠিক একইভাবে জয়ের বিরুদ্ধেও স্বাধীনতা বিরোধীরা অপপ্রচার চালাচ্ছে। তাই দেশ কিংবা বিদেশ যেখানেই সজীব ওয়াজেদ জয়কে নিয়ে কুরুচিপূর্ন মন্তব্য করা হবে সেখানেই প্রতিবাদ করার জন্য নেতাকর্মীদের পরামর্শ দেন, এ নেতা।

মালয়েশিয়া আওয়ামীলীগের যুগ্ন-আহ্বায়ক আবু হানিফ তার বক্তব্যে বলেন, তথ্য ও প্রযুক্তির ছোঁয়ায় বাংলাদেশকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন, সজীব ওয়াজেদ জয়। তার মেধা ও বুদ্ধিদীপ্ত চিন্তা, চেতনার বাস্তব প্রয়োগের ফলে দেশের মানুষের জীবনযাত্রা অনেক সহজ হয়েছে।

ভারতের ব্যাঙ্গলুরু থেকে কম্পিউটার সাইন্সে অধ্যায়ন শেষে যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে পড়াশুনা করা সজীব ওয়াজেদ জয় সবসময় বাংলাদেশের মানুষের কল্যানে কাজ করে যাচ্ছেন বলে মন্তব্য করেন, মালয়েশিয়া যুবলীগের আরেক যুগ্ন-আহ্বায়ক মানসুর আল বাশার সোহেল। শফিক রেহমানের মতো মুখোশধারী ব্যাক্তি, যারা সারাবিশ্বে বর্বর জাতি হিসাবে পরিচিত ইসরাইলের মিত্র, তারা ডিজিটাল বাংলাদেশের হাতিয়ার জয়কে নিয়ে ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে। এই ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে অবিলম্বে আরো কঠোর ব্যবস্থা গ্রহনে বাংলাদেশ সরকারের দৃষ্টি আকর্ষন করেন, মানসুর  সোহেল।

অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা মালয়েশিয়া আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি এ কে এম আলমগীর হোসেন ছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসাবে আরো বক্তব্য রাখেন, বীরমুক্তিযোদ্ধা শওকত হোসেন পান্না, মালয়েশিয়া যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক এ কামাল হোসেন চৌধুরী, মনিরুজ্জামান মনির, শাখাওয়াত হক জোসেফ, মালয়েশিয়া স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক তারিকুজ্জামান মিতুল, সামসুল ইসলাম, জাতীয় শ্রমিকলীগ মালয়েশিয়া শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন, ছাত্রলীগের যুগ্ন-আহ্বায়ক ওয়াসিম ওয়াজেদ, রাসেল  শিকদার, নজরুল ইসলাম ও কবিরুজ্জামান জীবন।

মাওলানা নুরুল মোস্তফার কোরআন তিলাওয়াতের মধ্য দিয়ে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, মালয়েশিয়া আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল করিম, যুবলীগের বিজন মজুমদার, রেজাউল হক লায়ন, সুভাষ চন্দ্র দেবনাথ, শরীফ আহম্মেদ রাজু, মাহবুবুর রহমান রুবেল, শওকত হোসেন চৌধুরী সৈকত, হাকিম ভুইয়া, ব্রাউন সোহেল, শেখ জহির, আবু বক্কর মাহমুদ, কামরুল, মিজান, সালাউদ্দিন টিটু, রাসেল খান, শিশির, আনিসুর রহমান, হারুন রশিদসহ অনেকে।

Top