You are here
Home > খেলা > আর কতদিন কেকেআর এ ব্রাত্য হয়ে থাকবেন সাকিব?

আর কতদিন কেকেআর এ ব্রাত্য হয়ে থাকবেন সাকিব?

সাকিব আল হাসান

বেশ অনেকদিন ধরেই বল হাতে ভালো করলেও রানে নেই সাকিব আল হাসান। বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে হাফ সেঞ্চুরি করার আগে টি২০ তে সর্বশেষ হাফ সেঞ্চুরি করেছিলেন গত বছরের এপ্রিলে সেই পাকিস্তানের বিপক্ষেই।

ওয়ানডেতে সাকিবের সর্বশেষ অর্ধশতক এসেছিল ভারতের বিপক্ষে গত বছরের জুনে। এরপর থেকেই রানখরায় ভুগছেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। ফর্মহীনতার কারণে তার উপর এখন আর আস্থা রাখতে পারছেন আইপিএলের দল কলকাতা নাইট রাইর্ডাস।

গত কয়েক বছর ধরেই কলকাতা নাইট রাইর্ডাসের হয়ে নিয়মিত খেলছেন সাকিব আল হাসান। তবে এই মৌসুমের পরিস্থিতি ভিন্ন। শিরোপা পুনরুদ্ধারের মিশনে এবার এক প্রকার দলটিতে ব্রাত্যই হয়ে পড়েছেন বিশ্বের সেরা এই অলরাউন্ডার। অবশ্য দলের হয়ে সাকিবের পারফরম্যান্সও আশানুরূপ নয়।

এ পর্যন্ত ৮টি ম্যাচ খেলেছে কেকেআর। এর ৪টি খেলেছেন সাকেব বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব। তবে নিজের নামের প্রকি সুবিচার করতে পারেননি এই টাইগার অলরাউন্ডার।

এবারের আসরে কেকেআরের প্রথম ম্যাচে দলে ছিলেন না সাকিব। অবশ্য সাকিববিহীন কলকাতা জিতেছে বেশ সহজেই। দিল্লিকে ৯৮ রানে অলআউট করে দিয়ে কলকাতা ম্যাচ জিতে নেয় ৯ উইকেটে।

স্বাভাবিকভাবেই ছিলেন না দ্বিতীয় ম্যাচেও। সেই ম্যাচে অবশ্য সাকিবের প্রয়োজনীয়তা বেশ ভালোভাবেই অনুভব করেন গম্ভীর কারণ ভালো ব্যাটিং করেও রোহিত শর্মার মুম্বাইয়ের কাছে  হারতে হয় কলকাতাকে।

তৃতীয় ম্যাচেই সাকিবকে দলে ফিরিয়ে আনে শাহরুখের দল। আবার জয়ের ধারায় ফিরে কলকাতা। বল হাতে ৩ ওভারে ১৮ রান দিয়ে কোনও উইকেট পাননি সাকিব। ব্যাট করারও সুযোগ পাননি তিনি।

চতুর্থ ম্যাচেও দলে ছিলেন সাকিব। বল হাতেও বেশ ভালো করেছিলেন তিনি তবে অপর দুই স্পিনার সুনীল নারাইন ও পিযুষ চাওলার তুলনায় একটু বেশি খরুচে ছিলেন এই বোলার। ব্যাট হাতে ১৫ বলে মাত্র ১১ রান করেছিলেন তিনি।

তারপরও সাকিবের উপরই আস্থা রেখেছিলেন টিম ম্যানেজম্যান্ট। তবে বল হাতে অসাধারণ কররৈও ব্যাট হাতে এবারো প্রতিদান দিতে ব্যর্থ হন সাকিব। দলের প্রয়োজনের সময় ৯ বলে মাত্র ৩ রান করে আউট হন।

জয়ের ধারায় থাকায় উইনিং কম্বিনেশন ভাঙতে চায়নি কেকেআর। মুম্বাইয়ের বিপক্ষে ফিরতি ম্যাচে আবার ব্যাট হাতে একেবারে নিস্প্রভ সাকিবকে পরের ম্যাচেই বাদ দিয়ে দেয় কলকাতা।

এবারের আইপিএলে ৪ ম্যাচে খেলে মাত্র ২০ রান করেছেন সাকিব। বল হাতে রান কম দিলেও উইকেট নিয়েছেন মাত্র ২টি।  এভাবে চলতে থাকলে আসরের পরের ম্যাচগুলোতে সাকিবের খেলার আশা খুবই ক্ষীণ বলে ভাবছেন ক্রিকেটবোদ্ধারা।

Top