You are here
Home > জাতীয় > নার্সদের দাবি মেনে নিয়েছে সরকার

নার্সদের দাবি মেনে নিয়েছে সরকার

নার্সদের দাবি মেনে নিয়েছে সরকার

বিপিএসসির প্রকাশিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি বাতিল করে মেধা ও জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে নিয়োগের দাবিতে আন্দোলনরত নার্সদের দাবি মেনে নিয়েছে সরকার। পিএসসির জারি করা নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দুই-একদিনের মধ্যে বাতিল করা হবে।

রোববার সচিবালয়ে আন্দোলনরত নার্স নেতৃবৃন্দের সঙ্গে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বৈঠকে এ দাবি মেনে নেওয়া হয়।

বাংলাদেশ ডিপ্লোমা বেকার নার্সেস অ্যাসোসিয়েশনের (বিডিবিএনএ) মহাসচিব ফারুক হোসেন এ তথ্য জানিয়েছেন।

বৈঠক শেষে সচিবালয় থেকে বেরিয়ে বাংলাদেশ ডিপ্লোমা বেকার নার্সেস অ্যাসোসিয়েশনের (বিডিবিএনএ) সভাপতি রিনা আক্তার বলেন, “দুই-একদিনের মধ্যে পিএসসির বিজ্ঞপ্তি বাতিল করা হবে।”

পরে ডিরেক্টরেট অব নার্সিং সার্ভিসেসের মহাপরিচালক নিলুফার ফরহাদ অনশনরত নার্সদের পানি পান করিয়ে অনশন ভাঙান। দাবি মেনে নেওয়ার খবরে আন্দোলনরত বেকার নার্সদের মধ্যে আনন্দের উচ্ছ্বাস ছড়িয়ে পড়ে আন্দোলনরত নার্সদের মধ্যে। তারা হাত ধরাধরি করে নৃত্যে মেতে ওঠে। শুরু হয় মিষ্টি বিতরণ। তাৎক্ষণিকভাবে সংক্ষিপ্ত এক সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

সমাবেশে বাংলাদেশ নার্সেস ওয়েল ফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট ইসমত আরা বলেন, “পুলিশের লাঠিচার্জ, পেপার স্প্রে ও টিয়ার সেলের মুখোমুখি হয়েছি আমরা। একের পর এক কর্মর্সূচিতে পুলিশ বাধা দিয়েছে। নির্যাতন করেছে। এর পরও আমরা রাজপথ ছাড়িনি। নার্সদের সম্মিলিত দৃঢ়তার কারণেই সম্ভব হয়েছে এ অর্জন। আন্দোলনে অংশ নেওয়া প্রত্যেক নার্সকে এজন্য আমি জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ।”

সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বিডিবিএনএ সভাপতি রিনা আকতার বলেন, “প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের দুঃখ বুঝতে পেরেছেন, আমাদের দাবি মেনে নিয়েছেন, এজন্য আমরা নার্স সমাজ তার কাছে কৃতজ্ঞ। শেখ হাসিনা নার্সদের মাতা। আমরা দীর্ঘদিন ধরে রাজপথে অসহনীয় কষ্ট ভোগ করেছি। আমাদের কষ্টে প্রধানমন্ত্রী ব্যথিত হয়েছেন। আমাদের দাবি মেনে নিয়েছেন। এজন্য তিনি আমাদের শ্রদ্ধার পাত্র হয়ে থাকবেন।”

বিডিবিএনএ মহাসচিব ফারুক হোসেন বলেন, “প্রথমে আমি আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমকে। তারা আমাদের কষ্ট বুঝতে পেরে আমাদের দাবি মেনে নিয়েছেন। আমরা এজন্য তাদের কাছে কৃতজ্ঞ।”

সমাবেশ শেষে পাঁচ হাজারের বেশি নার্সদের একটি মিছিল প্রেসক্লাব থেকে দোয়েল চত্বর, শহিদ মিনার ও টিএসসি প্রদক্ষিণ করে আবার প্রেসক্লাবে এসে শেষ হয়।

এর আগে সকাল ১০টায় সচিবালয়ে বেকার নার্স নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আলোচনায় বসেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। বাংলাদেশ ডিপ্লোমা বেকার নার্সেস অ্যাসোসিয়েশন (বিডিবিএনএ) ও বাংলাদেশ বেসিক গ্রাজুয়েট নার্সেস সোসাইটির (বিবিজিএনএ) পক্ষ থেকে চার সদস্যের প্রতিনিধ দল এ আলোচনায় অংশ নেয়। বৈঠক শেষ হয় বেলা পৌনে ১২টার দিকে।

প্রতিনিধি দলে ছিলেন বিডিবিএনএ সভাপতি রিনা আক্তার, মহাসচিব ফারুক হোসেন, বিবিজিএনএ সভাপতি রাজিব কুমার বিশ্বাস ও সহ-সভাপতি নাহিদা আক্তার।

সরকারের পক্ষ থেকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) মহাসচিব ডা. ইকবাল আর্সালান ও ডিরেক্টরেট অব নার্সিং সার্ভিসেসের মহাপরিচালক নিলুফার ফরহাদ।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশন প্রকাশিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি বাতিল করে আগের নিয়ম বহাল রেখে ব্যাচ, মেধা ও জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে নতুন সৃজিত সিনিয়র স্টাফ নার্সদের ১০ হাজার পদ ও বর্তমানে শূন্য তিন হাজার সাতশ ২৮টি পদসহ সর্বমোট ১৩ হাজার সাতশো ২৮টি পদে নিয়োগের দাবিতে অনেকদিন ধরে আন্দোলন করে আসছিলেন দেশের এই হতভাগা বেকার নার্সরা। গত বৃহস্পতিবার তার আমরণ অনশনে যান।

জানা গেছে, নতুন সৃষ্ট সিনিয়র স্টাফ নার্সদের ১০ হাজার পদ ও বর্তমানে শূন্য তিন হাজার সাতশ ২৮টি পদসহ মোট ১৩ হাজার সাতশ ২৮টি পদ রয়েছে। এর মধ্যে ৮৯ ভাগ পদ ডিপ্লোমা ইন নার্সিং ডিগ্রিধারী রেজিস্টার্ড নার্সদের এবং ১১ ভাগ পদ বেসিক বিএসসি ইন নার্সিং ডিগ্রিধারী রেজিস্টার্ড নার্সদের মধ্য থেকে পূরণ করাই এই বেকার নার্সদের দাবি।

Top