You are here
Home > জীবনযাপন > ভ্রূ দেখেই মানুষ চিনুন!

ভ্রূ দেখেই মানুষ চিনুন!

ভ্রূ দেখেই মানুষ চিনুন

মুখ নাকি আয়না। সব কিছুরই প্রতিফলন ঘটে তাতে। কিন্তু অনেকে বলছেন, ভ্রূ-ও আয়না। কেননা, তাতে ফুটে ওঠে স্বভাবের নানা দিক। কেমন ভ্রূ হলে কী বলা হয়, জেনে নিন।

১. স্বাভাবিক মোটা ভ্রূ:
যাঁদের মোটা ভ্রূ, তাঁরা সাধারণত আত্মবিশ্বাসী হয়ে থাকেন। সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে পটু, কর্মঠ। ব্যক্তিত্ব প্রখর হয়। তবে এঁরা খুব অল্পেই বিরক্ত হয়ে যান। অগ্রগতির পথে বাধা এলে ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠেন

২. স্বাভাবিক সরু ভ্রূ:
এঁরা সচরাচর সিদ্ধান্তহীনতায় ভোগেন। কোনও একটি কাজে অগ্রসর হওয়ার আগে দশজনের সঙ্গে পরামর্শ করেন। আত্মবিশ্বাসের একটু অভাব থাকতে পারে। তবে মনের দিক থেকে এঁরা অত্যন্ত নরম।

৩. মোটাও নয়, সরুও নয়:
এঁরা সাধারণত নিজেদের সৌন্দর্য নিয়ে অহঙ্কারী হয়ে থাকেন। তবে এঁদের আত্মবিশ্বাস দেখার মতো।

৪. বাঁকা ভ্রূ:
এঁরা মানুষের সঙ্গে খুব ভালভাবে মিশতে পারেন। এঁদের এমন একটি উষ্ণতা এবং আকর্ষণ রয়েছে যে, যে কোনও অনুষ্ঠানে এঁরা সহজেই মধ্যমণি হয়ে ওঠেন।

৫. স্ট্রেট ভ্রূ:
এঁরা এককথায় ‘ইন্টেলেকচুয়াল’। যুক্তিবাদী, পেশাদার এবং অত্যন্ত বুঝেশুনে কাজ করেন। এই ধরনের মানুষকে সকলেই সহকর্মী বা বস‌ হিসেবে পেতে চাইবেন।

৬. কুইনস আইব্রো:
এঁরা নিজেদের থেকেই অনেক কিছু প্রত্যাশা করেন। শুধু তা-ই নয়, সার্বিকভাবে পৃথিবী থেকেও এঁদের প্রত্যাশা চড়া। ফলে, কখনও কখনও এঁদের সঙ্গে পায়ে পা মিলিয়ে চলা কঠিন হয়ে পড়ে। একসঙ্গে কাজ করার পরিবর্তে এঁরা পৃথকভাবে কোনও কাজ করতে ভালবাসেন। সকলের মধ্যে থাকলেও, ‘আমি আলাদা’-গোত্রের একটা ভাব ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করেন।

৭. পিকড ব্রো:
চিন্তাশীল, সবসময়ে শিখতে আগ্রহী। যে কোনও বিষয়ে প্রতিক্রিয়াও বেশ ভাল। এঁরা খুব ভাল ছাত্র বা ছাত্রী হয়ে থাকেন। আনন্দ, খুশি, মজা-গোত্রের শব্দগুলো এঁদের সঙ্গে যেন সর্বদাই জড়িয়ে রয়েছে।

৮. চুল আর ভ্রূ-র রং যাঁদের আলাদা:
এঁরা সাধারণত ঝুঁকি নিতে চান সবসময়ে। আরও একটি বিষয়, এঁরা সর্বক্ষণ নজর কাড়তে উন্মুখ। সে কারণেই একটি অদ্ভুত বৈপরীত্য ফুটিয়ে তোলেন চুল এবং ভ্রূ-র মধ্যে।

Top