You are here
Home > সারাদেশ > কুড়িগ্রামে আ.লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যার হুমকির অভিযোগ

কুড়িগ্রামে আ.লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যার হুমকির অভিযোগ

কুড়িগ্রামে আ.লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যার হুমকির অভিযোগ

কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল আজিজকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে দুর্গাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ।

রোববার (২৪ এপ্রিল) দুপুরে কুড়িগ্রাম প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করেন মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজ সরকার ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক উমর ফারুক (মঙ্গা)।

সম্প্রতি দুর্নীতির দায়ে সাময়িকভাবে বরখাস্ত দুর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম সাঈদের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উপস্থাপন করে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজ সরকার। মোবাইলে প্রাণনাশের হুমকীর অডিও সংবাদ সম্মেলনে উপস্থাপন করা হয়। এর পাল্টা অভিযোগ করেছেন চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম সাঈদ ও উলিপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মতি শিউলী। মুলত ইউপি নির্বাচনে দলের মনোনয়ন পাওয়া নিয়ে এই দ্বন্দ্ব।

মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজ লিখিত বক্তব্যে বলেন, দুর্গাপুর ইউনিয়নে তৃণমুল আওয়ামী লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী সাইফুল ইসলাম সাঈদ গত ১৯ এপ্রিল রাত এগারোটায় মোবাইল ফোনে তাকে পুড়িয়ে মারার হুমকিসহ অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ দেয়।

দুর্গাপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ব্যানারে সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সাধারণ সম্পাদক উমর ফারুক (মঙ্গা), ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি শামীম আহসান কাজল, ইউনিয়ন স্বেচ্ছা সেবক লীগের সভাপতি আবু তৈয়ব সরকার প্রমুখ।

লিখিত বক্তব্যে দাবি করা হয় দুর্নীতির দায়ে অপসারিত চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম সাঈদের পিতা মোন্নাফ আলী বিএনপি নেতা এবং তার দাদা মৃত. দুখা হাজি স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় ছিলেন শান্তি কমিটির চেয়ারম্যান। আর সাইফুল ইসলাম রাজশাহী বিশ্বিবিদ্যালয়ে পড়ার সময় ছাত্র শিবিরের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিল।

বক্তব্যে আরও দাবি করা হয় সাইফুল ইসলাম সাঈদ ইউনিয়ন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের কোনো পদে না থাকলেও টাকার বিনিময়ে তৃণমুল আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে নিজেকে ক্ষমতাবান মনে করছেন ও হত্যার হুমকি দিয়ে যাচ্ছেন। এ অবস্থায় তিনি পরিবার-পরিজন নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন এবং প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

পঞ্চম দফায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দুর্গাপুর ইউনিয়ন থেকে আবদুল আজিজ আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী ছিলেন। কিন্তু আওয়ামী লীগ বরখাস্তকৃত সাবেক চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম সাঈদকে মনোনয়ন দেয়।

দুর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম সাঈদ তার বিরুদ্ধে আনিত সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, উল্টো উমর ফারুক (মঙ্গা), মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজ, শামীম, মোফাজ্জলসহ কতিপয় সন্ত্রাসী একের পর এক আমাকে প্রাণনাশের হুমকী দিয়ে আসছে। শুধু তাই নয় একাধিকবার প্রকাশ্যেই হামলা চালায়। চলতি মাসে তাদের বিরুদ্ধে নিরাপত্তার জন্য আমি তিনটি জিডি করি। জিডিগুলো হলো-উলিপুর থানার জিডি নং ২৪০ তাং ৬/৪/১৬, রংপুর সদর থানার জিডি নং-৫৭ তাং-১/৪/১৬ এবং ঢাকা শাহবাগ থানার জিডি নং ৩২৫ তাং-৬/৪/১৬।

তিনি দাবী করেন মুলত দুর্গাপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের তৃণমুল নেতাদের ভোটে চেয়ারম্যান প্রার্থী নির্বাচিত হওয়ায় একটি পক্ষ আমাকে নিয়ে মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য উপস্থাপন করে ফায়দা লোটার চেষ্টা করছে।

উলিপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মতি শিউলী জানান, দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে দুর্গাপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক উমর ফারুক (মঙ্গা) কে শোকজ করা হয়েছে। দলের ৪ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে সাইফুল ইসলাম সাঈদ ৪৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়। রোববার কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ থেকে তাকে চুড়ান্ত মনোনয়ন দেয়া হয়। মনোনয়ন বঞ্চিতরা এখন দলের বিরুদ্ধে অপপ্রচারে নেমেছে।

উলিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জমির উদ্দিন জানান, লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Top