You are here
Home > প্রবাস > নিউইর্য়কে বর্ণাঢ্যভাবে বাংলা নববর্ষ ১৪২৩ উদযাপন

নিউইর্য়কে বর্ণাঢ্যভাবে বাংলা নববর্ষ ১৪২৩ উদযাপন

নিউইর্য়কে বর্ণাঢ্যভাবে বাংলা নববর্ষ ১৪২৩ উদযাপন

বাংলাদেশ জ্যাকসন হাইটস ক্লাবের আয়োজনে এবং স্থানীয় বাংলাদেশ কমিউনিটির সক্রিয় অংশগ্রহণে নিউইর্য়কে বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে বর্ণাঢ্যভাবে বাংলা নববর্ষ ১৪২৩ উদযাপিত হয়েছে। ১৪ই এপ্রিল বৃহস্পতিবার বর্ণিল আয়োজনের মাধ্যমে দিবসটি উদযাপন করা হয় এবং এতে ছাত্র-ছাত্রী, সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠনসহ কমিউনিটির এবং স্থানীয় ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দসহ গণমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। নানান ফেস্টুন আর রং বেরং-এর বাঙালি সংস্কৃতি আর ঐতিহ্যে সাজিয়ে তোলা হয়েছিল অনুষ্ঠানস্থলের চারপাশ।

এই আয়োজনের প্রধান আকর্ষণ ছিল বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে আয়োজিত বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা। নানা রঙের বৈশাখী পোষাক, ব্যানার ফেস্টুনে সুসজ্জিত ও দেশীয় বাদ্যযন্ত্র সহকারে আয়োজিত শোভাযাত্রাটি ৭৩ ষ্ট্রীট  থেকে যাত্রা শুরু করে জ্যাকসন হাইটসে, ব্রডওয়ে হয়ে ৩৭ এভেনিউতে গিয়ে শেষ হয়।

রাস্তায় ভ্রমণরত অন্যান্য বিদেশী নাগরিকরাও শোভাযাত্রাটি উপভোগ করেন, নববর্ষের শুভেচ্ছা জানান এবং হাততালি দিয়ে আনন্দ প্রকাশ করেন। শোভাযাত্রালিতে নিউইর্য়কে অবস্থানরত বাংলাদেশের নাগরিকরা তাঁদের পরিবার-পরিজন নিযে রঙ-বেরঙের পোষাকে সজ্জিত হয়ে স্বতস্ফুর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বক্ত্যবো রাখেন বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল মোঃ শামীম আহসান ও জেবিবির সভাপতি জাকারিয়া মাসুদ জিকু, সাধারন সম্পাদক তারেক হাসান, দেওয়ান মনির প্রমূখ।

শোভাযাত্রার শুরুতে কনস্যুলেট জেনারেল মোঃ শামীম আহসান, সকলকে নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য প্রদান করেন ৭৪ষ্ট্রীটে খামার বাড়ীর প্রাঙ্গনে। তিনি বাংলা নববর্ষকে জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকলের একত্রিত হওয়ার এক সার্বজনীন ও অসাম্প্রদায়িক উৎসব হিসেবে অভিহিত করেন। তিনি তাঁর বক্তব্যে হাজার বছরের বাঙালী জাতিসত্তার অন্যতম স্তম্ভ বাংলা নববর্ষ উদযাপনের তাৎপর্য তুলে ধরেন। তিনি বলেন, বাংলা নববর্ষ উদ্যাপনের এ অনুষ্ঠান কেবল এক সম্মিলনীই নয়; বরং তা বাংলা শিল্প, সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের যে সমৃদ্ধ ভান্ডার রয়েছে বিদেশের মাটিতে তার প্রসারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

অনুষ্ঠানে সংঙ্গীত পরিবেশন করেন নিউ ইর্য়কের শাহ মাহবুব, রোকসানা মির্জা প্রমূখ। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের শেষে অতিথিদের ঐতিহ্যবাহী দেশীয় খাবার দিয়ে নৈশ্যভোজে আপ্যায়ন করা হয়।

বর্ষবরণের এই অনুষ্ঠানের সার্বিক সহযোগিতায় আরও ছিলেন বাংলাদেশ জ্যাকসন হাইটস ক্লাব এর মীর নিজাম, হারুন ভূইয়া, ফরিদ, বাবু, মানিক, শ্যামল রোমিও রহমান, সার্ম, জনি, আজাদ, মুক্তার, তানভীর রহমান বাবু, মানিক বাবু, নান্টু, তৈয়বুর রহমান তৈয়ব, মালেক, তৌফিক(টনি),দেলোয়ার, রেজা, রাহুল, মিলন, সুমন, কবির, অনিক, সামীর, আলম, কালা জনি, আখলাখুর রহমান আপন, রবিন চৌধুরী মাসুদ, সরয়ার খান বাবু, মতিন প্রমূখ।

Top