You are here
Home > ঢাকার খবর > রিজার্ভ চুরির ঘটনায় জড়িত ২০ বিদেশি শনাক্ত

রিজার্ভ চুরির ঘটনায় জড়িত ২০ বিদেশি শনাক্ত

রিজার্ভ চুরির ঘটনায় জড়িত ২০ বিদেশি শনাক্ত

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ঘটনায় জড়িত ২০ বিদেশিকে শনাক্ত করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ-সিআইডি। সিআইডি তদন্তে তারা যে তথ্য পেয়েছেন, তাতে কয়েকটি ক্ষেত্রের লোকজনের গাফিলতি ছিল বলেও জানানো হয়।

এদিকে, এ ঘটনায় বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তাদের সহযোগিতা ছাড়া রিজার্ভ চুরির মত ঘটনা কঠিন বলে মনে করেন রূপালী ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান ড. আহমদ আল কবির।

বাংলাদেশে ব্যাংকের রিজার্ভের অর্থ চুরির ঘটনায় শুরু থেকেই তদন্ত করছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ সিআইডি। তবে এখন পর্যন্ত উল্লেখযোগ্য কোন তথ্য দিতে না পারলেও, সোমবার ফিলিপিন্স ও শ্রীলংকায় তদন্ত দলের সফর সম্পর্কে ব্রিফিং-এ প্রকাশ করা হলো ২০ জন বিদেশী জড়িত থাকার বিষয়টি।

সিআইডি’র অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক শাহ আলম বলেন, ‘আমরা ফিলিপাইন ও তার আশেপাশের অনেকগুলো দেশের অন্তত ২০ জন বিদেশিকে আমরা সনাক্ত করেছি। যারা ডিরেক্টলি ও ইনডিরেক্টলি এখানে জড়িত।’

অর্থ চুরির সময় রিজার্ভের নিরাপত্তায় যে চরম গাফিলতি দেখা গেছে তা অবহেলামূলক নাকি অপরাধমূলক তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে উল্লেখ করে ব্রিফিং-এ বলা হয়, এ ঘটনায় বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের নিরাপত্তায় নিয়োজিত অনেকেই তাদের সন্দেহের তালিকায় রয়েছেন। এদিকে, ব্যাংকের ভেতরের লোকজনের যোগসাজশ ছাড়া এমন ঘটনা ঘটানো সহজ নয় বলে অভিমত অর্থনীতি বিশ্লেষকেরও।

সিআইডি’র অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক শাহ আলম বলেন, ‘বাংলাদেশের ভেতরে যারা আছে তাদের ব্যাপারে আমাদের সন্দেহের ব্যাপারটি বড়-ই। আমরা ছোট করে এনেছি বলেছি কিন্তু এখানে আমাদের সময় লাগবে কাজটা বলতে। কারণ লিংক না পাওয়া পর্যন্ত পার্থক্যটা বুঝা যাচ্ছে না। একটা হচ্ছে অবহেলা, আরেকটি হচ্ছে অপরাধের ইচ্ছা।’

রূপালী ব্যাংক লিমিটেডের সাবেক চেয়ারম্যান ড. আহমদ আল কবির বলেন, ‘এটা একটি সঠিক ফাইন্ডিংস। আমরা আগেও বলেছিলাম বিদেশিরা থাকবে ঠিকই কিন্তু দেশের ভেতর থেকেও কিছু লোক এখানে সহযোগিতা করেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকে যে গাফিলতির বিষয়টি বলা হয়েছে এটা অত্যন্ত পরিষ্কার।’

একই সঙ্গে, প্রচলিত আইনেই দেশী-বিদেশী অপরাধীদের আইনের আওতায় আনা সম্ভব বলেও মনে করেন তারা।

Top